সড়ক দুর্ঘটনায় নিথর দেহ পড়ে আছে রাস্তায়।

বর্তমান খবর,শ্রীপুর(গাজীপুর)প্রতিনিধি:
সড়ক-মহাসড়ক এখন দুর্ঘটনার মরণফাঁদ আর যান্ত্রিক যানগুলো ঘাতক দৈত্য। আমরা কেউই জানিনা,জীবন জীবিকার প্রয়োজনে বাইরে গিয়ে সুস্থ দেহে আবার ঘরে ফিরে আসতে পারবো কি না। কেননা অহরহ দুর্ঘটনার বলি হচ্ছে অসংখ্য মানুষ।

কেউ আহত হচ্ছে,কেউ হচ্ছে পঙ্গু, কারও অকালে জীবন দিতে হচ্ছে। হারিয়ে ফেলছে রঙ্গিন সাজানো জীবন। একটা জীবন হারিয়ে পরিবারের অনেক মানুষ মারাত্মক দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। অনেক অনেক পরিবার পথে বসে যাচ্ছে। বন্ধ হয়ে যাচ্ছে সন্তানদের লেখাপড়া, চিকিৎসা।

খাওয়া- পড়া জোগাতেই হিমশিম খাচ্ছে এসব পরিবারের সদস্যরা। অথচ এসব দুর্ঘটনা যারা ঘটাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে বিচার হচ্ছে না। এমনকি পরিবহন মালিকের পক্ষ থেকে বা সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া হচ্ছেনা সেইরকম কোন সাহায্য সহযোগিতা। ফলে অধিক নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন দুর্ঘটনাকবলিত পরিবারের সদস্যরা।

যান্ত্রিক শহরের মানুষগুলো পৃষ্ঠ হচ্ছে যান্ত্রিক চাকায়। ঠিক এমনই এক হতভাগ্যের নির্মম মোটরসাইকেল দূর্ঘটনা ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুরে,ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে আনসার রোড এলাকায়। কাভার্ড ভ্যানের চাপায় হাসিবুল হাসান শান্ত(২৫) নামের এক মোটরসাইকেল আরোহীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) দুপুর বারোটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত হাসিবুল হাসান শান্ত (২৫) গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার চরখামের গ্রামের জামাল মিয়ার ছেলে।

মাওনা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.কামাল হোসেন জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে হাইওয়ে থানায় রাখা হয় পরে এ ঘটনায় কোনও বাদী না থাকায় এবং পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে লাশ তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রতিবছর এ রকম ১০ হাজার দুর্ঘটনা ঘটে,এর মধ্যে ৫ হাজার জনের মৃত্যু হয়। বাকিদের মধ্যে কেউ আহত বা পঙ্গু হয়ে জীবন- যাপন করে। আর এই সমস্ত দুর্ঘটনার নেপথ্যে রয়েছেন, অদক্ষ চালক,ত্রুটিপূর্ণ যানবাহন,অনুন্নত সড়ক ব্যবস্থা,ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করা। ট্রাফিক আইন অমান্য করে দ্রুতগতিতে যানবাহন চালানো ইত্যাদি।

আরও পড়ুন
Loading...