সিপিআরএমবি ও আরইও এর উদ্যোগে হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ হিন্দুদের মাঝে আর্থিক অনুদান প্রদান

বর্তমান খবর,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস কর্তৃক হেফাজতের মামুনুল হককে নিয়ে ফেইসবুকের স্ট্যাটার্সকে কেন্দ্র করে তার কিছু অনুসারীরা নোয়াগাঁও গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে হামলা ভাংচুর ও লুটপাঠের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ ১০টি পরিবারকে সেলাই মেশিন,৯টি পরিবারকে মাছ ধরার জাল বানানোর সরজ্ঞাম,৪৪টি পরিবারকে নগদ অর্থ প্রদান,৩৪জন নারীকে শাড়ি এবং অহসায় ছাত্রছাত্রী এবং বয়স্ক মহিলাদেরকে একবছরের জন্য স্কলারশিপ ও মাসিক ভাতা প্রদান পরবর্তী সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার সকালে রিসার্চ এন্ড এমপাউয়ারমেন্ট অর্গানাইজেশন(আরইও) এবং ক্যাম্পেইন ফর পোটেকশন রিলিজিউয়াম মাইনোরিটিজ ইন ইউকে(সিপিআরএমবি) এর অর্থায়নে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে ঐ সমস্ত সামগ্রী বিতরণ করা হয় এবং দুপুরে সুনামগঞ্জ শহরের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনের আরইও এর চেয়ারম্যান প্রফেসর চন্দন সরকার,বাংলাদেশ শিক্ষক ঐক্য পরিষদের আহবায়ক প্রফেসর ড. অরুণ কুমার গোস্বামী,ঝুমন দাসের আইনজীবি সুনামগঞ্জ জজকোর্টের (সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর) এড. দেবাংশু শেখর দাস,আরইও সংগঠনের যুব সম্পাদক রাজেশ নাহা গ্রেপ্তারকৃত ঝুমন দাসের মাতা নিভা রানী দাস,ঝমুনের সহধর্মিনী সুইটি রানী দাস ও স্বজন লোকেশ দাস প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দরা বলেন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাংলাদেশে শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস সে তার ব্যক্তিগত ফেইসবুক আইডিতে হেফাজেেতর যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে নিয়ে কমেন্ট করায় একটি সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠি তার গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়ের অনেকের বাড়িঘরে হামলা ভাংচুর ও লুটপাঠ করে। এই মামলায় হামলাকারীরা আদালতের মাধ্যমে জামিনে মুক্তি পেলেও ঝুমন দাস মামলায় তাকে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। তার জন্য আদালতের নিকট বার বার জামিন প্রার্থনা করলেও বিজ্ঞ আদালত তার জামিন না মুঞ্জুর করেই যাচ্ছেন। অবিলম্বে ঝুমন দাসের মুক্তির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রশাসনের নিকট দাবী জানান।

উল্লেখ্য ২০২১ সালের ১৬ই মার্চ ঝুমন দাস মামুনুল হককে নিয়ে তার ব্যক্তিগত ফেইসবুকের কমেন্ট করার সথে সাথে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দিলে ঐদিন রাতেই গ্রামের লোকজন ঝুমনকে শাল্লা থানা পুলিশের নিকট সোপর্দ করেন। কিন্তু গত ১৭ই মার্চ মামুনুল হকে অনুসারীরা সংঘবদ্ধ হয়ে শাল্লার নোয়াগাওঁ গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়ের একাধিক লোকজনের বাড়িঘরে হামলা বাংচুর ও লুটপাঠ চালায়।

আরও পড়ুন
Loading...