ভাসুরের বিরুদ্ধে ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

বর্তমান খবর,জয়পুরহাট,প্রতিনিধিঃ
জয়পুরহাটের কালাই উপজেলাধীন ঝামুটপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের কুয়েত প্রবাসী জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী মোছাঃ মিনা পারভিন তার আপন ভাসুর গাজীউল ইসলামের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ উল্লেখ করে জেলার ক্ষেতলাল রিপোর্টার্স ক্লাবে বৃহস্পতিবার (২৭ মে) দুপুরে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার,প্রশাসনের সঠিক তদন্তসহ প্রধানমন্ত্রীর কাছে ন্যায় বিচার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ছোট ভাইয়ের স্ত্রী মিনা পারভিন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি তাঁর লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, তাঁর স্বামী জাহাঙ্গীর আলম  কুয়েত প্রবাসী। স্বামী প্রবাসে থাকার সুযোগে তাঁর স্বামীর আপন বড় ভাই অর্থলোভী ও অবৈধ টাকার মালিক গাজীউল ইসলাম অর্থ আর ক্ষমতার দাপটে তাঁর স্বামীর অর্থাৎ তার নিজ ভাই ভাতিজার জমিজমা জোরপূর্বক দখল করেছেন।

তাঁর ভাসুর গাজীউল ইসলাম ঢাকায় অবস্থান করেন এবং ঢাকায় বসে প্রতারণার মাধ্যমে বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিদের সাথে সেলফি দেখিয়ে  জয়পুরহাট এলাকার সহজ-সরল বেকার যুবকদের চাকরি দেওয়ার নাম করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে  গাড়ি-বাড়ির মালিক হওয়ায় আমরা পরিবারের লোকজনও তাঁর নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছিনা।

তাঁর সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে আমাদেরকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করছে ও আমাদের সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করাসহ  প্রতিনিয়ত তাকে ও তার সন্তানদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলেছে।

মিনা পারভিন তাঁর লিখিত বক্তব্যে আরও উল্লেখ করেন, তাঁর ভাসুর গাজীউল ইসলাম কে নিয়ে ইতিমধ্যে বিভিন্ন মিডিয়ায় “শূন্য থেকে কোটিপতি” শিরোনামে” সংবাদ প্রকাশিত হলে তিনি ওই মিডিয়ায় সংশ্লিষ্ট ৩ জন সাংবাদিক এবং ওই নিউজটি নিজ ফেইসবুক আইডিতে শেয়ার করার অপরাধে তার স্বামী প্রবাসী জাহাঙ্গীর আলমসহ মোট ৬ জনকে আসামী করে গাজীউল ইসলাম ঢাকায় সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।

তিনি মিথ্যা মামলা দায়ের করার পরও বিভিন্নভাবে আমাকে ও আমার ছেলেমেয়েকে ভয়-ভীতি প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছেন, এমতাবস্থায় আমি ও আমার পরিবার পরিজন নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এ বিষয়ে  আমি কালাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি অভিযোগ  দায়ের করলেও এখনো কোনো প্রতিকার দৃশ্যমান হচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, আমি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার কন্যা, আমার পিতা রেজাউল ইসলাম কালাই উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, তারপরও আমার ভাসুরের কালো টাকার দাপটে আমি অসহায় হয়ে পড়েছি এবং আমার নিরাপত্তাহীনতার কারণে আমি কালাই উপজেলায় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করতে পারিনি।

ভবিষ্যতে আমার ও আমার সন্তানদের যে কোন ক্ষতির বিষয়ে ভাসুর গাজীউল ইসলাম দায়ী থাকবেন। একজন অসহায় নারী হিসেবে, একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে আমি আমার সম্পত্তি পুনরুদ্ধার, জানমালের নিরাপত্তা ও আমার প্রবাসী স্বামীর বিরুদ্ধে ঢাকা সাইবার ট্রাইব্যুনালে করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

তিনি লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন, এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আমি সাংবাদিক সমাজের কাছে বিষয়টি অবহিত করলাম এবং সর্বোপরি আপনাদের সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে প্রশাসনের সঠিক তদন্তসহ ন্যায় বিচার চেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি কামনা করেন।

এসময় জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
Loading...