বীরগঞ্জে সংঘবদ্ধ চক্রের মারপিটে যুবলীগ নেতা সহ একই পরিবারের ৪ জন আহত

বর্তমান খবর,বীরগঞ্জ(দিনাজপুর) প্রতিনিধি:
দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের মাহানপুর ঝাকুয়াপাড়া গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা ও ৮ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি কামিনী রায়ের স্ত্রী কমলিকা রায়(২৫)অভিযোগ করে জানান,একই এলাকার মৃত ভাদ্রু রায়ের ছেলে প্রদিপ(৩৫) দীর্ঘদিন যাবত কমলিকাকে কু- প্রস্তাব দিয়ে আসতো।

কমলিকা এ বিষয়ে প্রদীপকে বাধা দিলে তার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ১৯ এপ্রিল ২০২১ ইং বেলা সাড়ে ১১ টায় বাড়ির খুলিয়ানে এসে পুনরায় কু- প্রস্তাব দেয়। বিষয়টি সমন্ধে স্বামী কামিনী অবগত হলে প্রদীপকে বাধা-নিষেধ করলে রনজিৎ (৩৮),রাজেন্দ্র(৪০)সহ কয়েকজন সংঘবদ্ধ হয়ে যুবলীগ নেতার পরিবারকে গালিগালাজ করে কমলিকার বাম হাতে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে মারাত্মক কাটা গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে এবং কামিনীকে বাশের লাঠি দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারডাং করে ছেলাফুলা জখম করে।

এ সময় তাদের রক্ষার্থে বড় ভাইয়ের স্ত্রী তিস্তা রানী(২৭) এগিয়ে এলে তাকেও বিবস্ত্র করার চেষ্টা ও মারধর করে আহত করে এবং তার শিশু সন্তান তপু রায় (১৬) সহ সকলকেই গুরুত্বর আহত করে।

এসময় তাদের আত্মচিৎকারে সহোদর ভাই মলিন চন্দ্র রায়,প্রতিবেশি বিষনু রায়,ধর্মচন্দ্র রায় সহ অারো অনেকে এগিয়ে আসলে অপরাধীরা প্রকাশ্যে প্রাননাশ সহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি প্রদর্শন করে পালিয়ে গেলে আহতদের উদ্ধার করে বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

বর্তমানে সংঘবদ্ধ চক্রের বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকির মুখে অসহায় যুবলীগ নেতার পরিবারের পক্ষে তার স্ত্রী কমলিকা রায় অপরাধীদের বিচার দাবী করে বীরগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে এবং পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে বলে জানা যায়।

আরও পড়ুন
Loading...