বাংলাদেশে কোভিড-১৯ প্রতিরোধে মেটলাইফ ফাউন্ডেশন-এর ২ কোটি টাকা অনুদান

বর্তমান খবর : মেটলাইফ ফাউন্ডেশন কোভিড-১৯ আক্রান্ত আর্থিকভাবে অসচ্ছল ও দরিদ্র রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও আর্থিক সহায়তা দেওয়ার জন্য সাজিদা ফাউন্ডেশন-কে ২ কোটি টাকার অনুদান দিয়েছে। সাজিদা ফাউন্ডেশন একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসাবে ১৯৯৩ সাল থেকে বাংলাদেশের মানুষের স্বাস্থ্য, সমৃদ্ধি ও মর্যাদার উন্নয়নে কাজ করে চলেছে।

বাংলাদেশের বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবেলায় মেটলাইফ ফাউন্ডেশনের এটি একটি নতুন অনুদান। এ অনুদানের মাধ্যমে সাজিদা ফাউন্ডেশন তাদের কেরাণীগঞ্জ হাসপাতালে আরো বেশি সংখ্যক কোভিড-১৯ আক্রান্ত দরিদ্র রোগীদের বিনামূল্যে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাসহ হাসপাতালে থাকা বা অন্যান্য স্বাস্থ্য সেবা দিতে পারবে।

উল্ল্যেখ্য,কেরাণীগঞ্জ হাসপাতালে ১০০ টি শয্যা আছে এবং কোভিড-১৯ চিকিৎসার জন্য রয়েছে ৬টি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) এবং ২২ টি সেমি-ক্রিটিক্যাল শয্যা। কোভিড-১৯ এর ব্যয়বহুল চিকিৎসা দরিদ্র পরিবারের জন্য বহন করা কঠিন হয়ে পড়ে। এই আর্থিক অনুদানের মাধ্যমে সাজিদা ফাউন্ডেশন সুস্থ্য হয়ে ওঠা রোগীদের ও তাঁর পরিবারের জীবনযাত্রা সহজ করার জন্য প্রাথমিক আর্থিক সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি তাদের বিনামূল্যে কোভিড-১৯ চিকিৎসা সেবা দেওয়ার প্রচেষ্টা আরো দীর্ঘ সময়ের জন্য চালিয়ে যেতে পারবে।

অনুদানের একটি অংশ ব্যবহার করা হবে কোভিডে আক্রান্ত হয়ে পরিবারের প্রধান উপার্জনকারীর মৃত্যু হয়েছে এমন কিছু দরিদ্র পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার জন্য। এ অনুদান প্রসঙ্গে মেটলাইফ বাংলাদেশের জেনারেল ম্যানেজার, আলা আহমদ বলেন, “বাংলাদেশে কোভিড-১৯ এর নিরসনে মেটলাইফ ফাউন্ডেশনের নেওয়া উদ্যোগে আমরা অত্যন্ত গর্বিত। দেশের
মানুষের পাশে থেকে তাঁদের প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য সেবা ও সুরক্ষা দিতে আমাদের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।”

এছাড়াও, বিশ্বব্যাপী মেটলাইফের কর্মীরা এ জাতীয় অন্যান্য কার্যক্রমে নিজেরা আর্থিক অনুদান দিতে পারবেন এবং তাঁদের অনুদানের সাথে সমপরিমান অর্থ যোগ করবে মেটলাইফ ফাউন্ডেশন।

MetLife Inc. (NYSE: MET), এর অঙ্গপ্রতিষ্ঠান এবং সহযোগী প্রতিষ্ঠান (MetLife”) এর সমন্বয়ে বিশ্বের অন্যতম একটি আর্থিক সেবা প্রদানকারী কোম্পানি যা তার ব্যক্তি এবং প্রাতিষ্ঠানিক গ্রাহকদের বিমা, এ্যনুইটি, গ্রুপ বিমা ও সম্পদ ব্যবস্থাপনা সেবা প্রদানের মাধ্যমে পরিবর্তনশীল বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে সাহায্য করে। ১৮৬৮ সালে প্রতিষ্ঠিত মেটলাইফ
বিশ্বের ৪০ টিরও বেশি দেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে এবং যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, লাতিন আমেরিকা, এশিয়া, ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের বাজারে নেতৃস্থানীয় অবস্থানে রয়েছে।

১৯৫২ সালে বাংলাদেশে ব্যবসা প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে মেটলাইফ-এর এশিয়া যাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে মেটলাইফ বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ জীবনবিমা প্রতিষ্ঠান। প্রায় ১০ লক্ষেরও বোশ গ্রাহকের সেবায় নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানটি দেশের অন্যতম বৃহৎ নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান যার রয়েছে ১৬ হাজারের বেশি সুদক্ষ কর্মী। বিস্তারিত তথ্যের জন্য ভিজিট করুন: www.metlife.com.bd

মেটলাইফ ফাউন্ডশন
মেটলাইফ ফাউন্ডেশনে আমরা বিশ্বজুড়ে নিন্ম ও মধ্যম আয়ের মানুষের জন্য সুযোগ বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা মেটলাইফের কর্মীদেরকে সেচ্ছাসেবামূলক কাজে নিয়োজিত করার পাশাপাশি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান এবং সামাজিক উদ্যোগসমূহের সাথে অংশীদারিত্বের মাধ্য আর্থিক সক্ষমতা বৃদ্ধির সমাধান এবং শক্তিশালী কমিউনিটি সৃষ্টির জন্য কাজ করি।
মেটলাইফের কর্পোরেট অবদান এবং কামিউনিটিতে অংশগ্রহণ করার সুদীর্ঘ ঐতিহ্য অব্যাহত রাখার উদ্দ্যেশ্যে ১৯৭৬ সালে যাত্রা শুরু করে মেটলাইফ ফাউন্ডেশন।

২০২০ সালে যে সকল দেশে মেটলাইফ রয়েছে সে সকল দেশে, কমিউনিটিতে ইতিবাচক অবদান রাখার লক্ষ্যে মেটলাইফ
ফাউন্ডেশন ৯০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি অনুদান প্রদান এবং নানা উন্নয়নমূলক প্রোগ্রামে ৮৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি বিনিয়োগ করেছে। আমাদের আর্থিক সক্ষমতা বৃদ্ধির প্রচেষ্টা বিশ্বের ৪২ টি দেশের ১৩.৪ মিলিয়নের বেশি নিন্ম ও মধ্যম আয়ের মানুষকে উপকৃত করেছে। বিস্তারিত তথ্যের জন্য ভিজিট করুন: metlife.org সাজেদা ফাউন্ডেশন সাজেদা ফাউন্ডেশন একটি মূল্যবোধ অনুসারী বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা যা’ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯৩ সালে। এর লক্ষ্য হচ্ছে কার্যকর ও টেকসই নানা উদ্যোগের মাধ্যমে সমাজের সব স্তরের মানুষের জীবনে গুণগত পরিবর্তন সাধন করা।

বর্তমানে এটি ২৬টি জেলার ৪,০০০’র বেশি গ্রাম ও নগরে নতুন মাত্রার আর্থিক পরিষেবা, স্বাস্থ্যসেবা ও সামাজিক দায়িত্বশীল ব্যবসা উন্নয়ন কর্মসূচি পরিচালনা করছে। সমগ্র দেশের পাশাপাশি এটি নগরের প্রান্তিক মানুষের জীবনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে বিশেষভাবে কাজ করছে।

সাজেদা ফাউন্ডেশনের মৌলিক মূল্যবোধ ও কাজের ভিত্তি হচ্ছে মর্যাদা, সমতা, সকলের অন্তর্ভুক্তি, নতনত্ব ও স্বচ্ছতা- যা সুবিধাবঞ্চিত মানুষের জন্য সুস্বাস্থ্য, আনন্দময় ও মর্যাদাপূর্ণ জীবন নিশ্চিতকরণে অঙ্গীকারাবদ্ধ। সাজেদা ফাউন্ডেশন ‘রেনাটা লিমিটেড’র ৫১ শতাংশ শেয়ারের স্বত্বাধিকারী যা সমাজের অর্থপূর্ণ টেকসই উন্নয়নের ক্ষেত্রে এটিকে অনন্য সুবিধা প্রদান
করেছে ।

আরও পড়ুন
Loading...