বরিশালের বাকেরগঞ্জ থানায় চার শিশুর বিরুদ্ধে দায়ের করা ধর্ষণের মামলা স্থগিত – হাইকোর্ট

বর্তমান খবর : বরিশালের বাকেরগঞ্জ থানায় চার শিশুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা এবং ওই শিশুদের শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর ঘটনায় বাকেরগঞ্জ থানার তৎকালীন ওসি মো.আবুল কালামসহ ৭ পুলিশ সদস্য ও সমাজসেবা অফিসারকে বরখাস্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো.এনায়েত উল্লাহর ফৌজদারি বিচারিক ক্ষমতা প্রত্যাহার করে তাকে দেওয়ানি মামলার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি মো.মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কামরুল হোসেন মোল্লা সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ভার্চুয়াল বেঞ্চ রোববার এ সংক্রান্ত রুলের চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে এ রায় দেন। রায়ে মোট সাত দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এগুলো হলো: ১. চার শিশুকে গ্রেপ্তার ও থানা হেফাজতে আটক রাখা অবৈধ। ২. চার শিশুর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা বাতিল। ৩. বাকেরগঞ্জ থানার ওই সময়ের ওসিসহ তিন পুলিশ কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ। ৪. সংশ্নিষ্ট সমাজসেবা অফিসারকে সাময়িক বরখাস্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ। ৫. চার শিশুকে আটক করে প্রিজনভ্যানে করে আনা চার পুলিশ সদস্যকে শনাক্ত করে তাদের সাময়িক বরখাস্ত করা। ৬. চার শিশুকে যশোরের পুলেরহাট শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো বরিশালের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. এনায়েত উল্লাহর ফৌজদারি বিচারিক ক্ষমতা প্রত্যাহার করে তাকে দেওয়ানি মামলার দায়িত্ব দেওয়া। এবং ৭. শিশু আইন অনুযায়ী পুলিশের দায়িত্ব কর্তব্য গাইডলাইন আকারে প্রকাশ করে প্রত্যেকটা থানায় সার্কুলেট করা।

আদালতে শিশুদের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মো. আব্দু হালিম ও জামিউল হক ফয়সাল। অন্যদিকে রাস্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নওরোজ মো. রাসেল চৌধুরী ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল এমএমজি সরোয়ার পায়েল।

৬ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে আসামি করে গত বছরের ৬ অক্টোবর বাখেরগঞ্জ থানায় একটি মামলা করা হয়। এ মামলায় ওইদিনই চার শিশুকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর পর দিন ৭ অক্টোবর তাদের বরিশালের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এনায়েত উল্লাহ এক আদেশে ওই চার শিশুকে যশোর পুলেরহাট শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র্রে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর তাদের যশোর পুলেরহাট শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়।

এ নিয়ে একটি বেসরকারি টেলিভিশনে সংবাদ প্রচার হলে ওইদিন রাতেই হাইকোর্টের বিচারপতিদ্বয় নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করে ভার্চুয়াল আদালত বসিয়ে আদেশসহ রুল জারি করেন। আদেশে ৮ অক্টোবর রাতে যশোরের পুলেরহাট শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে থাকা ৪ শিশুর জামিনের বিষয়টি নিষ্পত্তি করে রাতেই শিশুদের এসি মাইক্রোবাসে করে নিজ বাড়িতে পৌঁছে দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়।

পাশাপাশি চার শিশুকে যশোরের পুলেরহাট শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর ঘটনায় বরিশালের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এনায়েত উল্লাহকে তলব করেন হাইকোর্ট।
এছাড়া চার শিশু ও তাদের অভিভাবকসহ ও বরিশালের বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে সশরীরে হাইকোর্টে হাজির হতে নির্দেশ দেওয়া হয়। এদিকে হাইকোর্টের ওই আদেশ অবহিত হবার সঙ্গে সঙ্গে বরিশালের বিচারক চার শিশুকে জামিন দেন।

অন্যদিকে ওই বছরের ১১ অক্টোবর বরিশালের বাকেরগঞ্জ থানায় চার শিশুর বিরুদ্ধে দায়ের করা ধর্ষণের মামলা স্থগিত করেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি রুলও জারি করা হয়। রোববারই ওই রুলের চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে রায় দেন হাইকোর্ট।

আরও পড়ুন
Loading...