প্রশিক্ষনার্থীদের চাপে প্রশিক্ষক প্রতারণার টাকা ফেরত

বর্তমান খবর,বীরগঞ্জ(দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ
দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নে সেলাই প্রশিক্ষণ শেষে প্রশিক্ষণার্থীদের ভাতা ও সেলাই মেশিন দেওয়ার কথা বলে নেয়া টাকাগুলো ফেরত দিতে বাধ্য হলো প্রতারক সেলাই প্রশিক্ষক।

৫ ই মে সোমবার দুপুরে উপজেলার মাহানপুর হাটের মোহাম্মদপুর ইউনিয়ন পরিষদে নিজপাড়া ইউনিয়নের কল্যানী হাট এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে ইয়ারফুল ইসলাম (৩২) কে আটক করে রাখে প্রতারিত হওয়া প্রশিক্ষণার্থীরা। ইউপি চেয়ারম্যান গোপাল দেব শর্মা সহ স্থানীয়দের সামনে দানেশপাড়া, সিংড়া সহ বেশ কয়েকটি গ্রামের প্রায় শতাধিক নারী সদস্যরা অভিযোগ করে জানান,ইয়ারফুল তাদের সবাইকে প্রশিক্ষণ শেষে ভাতা ও সেলাই মেশিন দেওয়ার কথা বলে নেয়া জনপ্রতি নগদ ৬ শত টাকা গ্রহণ করে তা না দিয়ে বিভিন্ন তালবাহানা করে সময় ক্ষেপণ করায় সন্দেহ হলে তাকে আটক করে পরিষদে নিয়ে আসা হয়।

এসময় উপস্থিত সকলের সামনে ইয়ারফুলের নিকট বেশকিছু ভূয়া অনুমতি সমেত কাগজপত্র ও বিভিন্ন সীল সহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সীল পাওয়া যায় এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধির মধ্যস্থতায় প্রতারণার শিকার হওয়া প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে ৪৬ হাজার টাকা ফেরত দিয়ে উপস্থিত মুক্তি পায় প্রতারক সেলাই প্রশিক্ষক।

বিস্বস্ত সুত্রে জানা যায়,ইয়ারফুল সম্প্রতি বছর কয়েক আগে আদিবাসীদের সেলাই প্রশিক্ষক হিসেবে দ্বায়িত্বরত অবস্থায় থাকাকালীন সরকারিভাবে বরাদ্দকৃত সেলাই মেশিন বিতরন হওয়ার সুবাদে অবৈধ কৌশল অবলম্বন করে বীরগঞ্জ ও কাহারোল উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের প্রত্যান্ত গ্রামাঞ্চলে গিয়ে সাধারণ মেয়ে মানুষদের কাছ থেকে নানান প্রলোভনে নগদ টাকা হাতিয়ে নিয়ে প্রতারিত করে চলছে। তারই ধারাবাহিকতায় মোহাম্মদপুর ইউনিয়নে নিজের প্রতারণার কথা ফাঁস হলে নিজমুখে অপরাধ স্বীকার করে ঠকিয়ে নেয়া টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হয় সেলাই প্রশিক্ষক ইয়ারফুল।

আরও পড়ুন
Loading...