ধানের দামে দরপতন, কৃষকরা হতাশ

বর্তমান খবর,নওগাঁ প্রতিনিধি :
উত্তরবঙ্গে ধানের দামে ধস নেমেছে। কয়েক দিনের ব্যবধানে প্রতি মণ ধানে দুইশ থেকে আড়াইশ টাকা পর্যন্ত কমেছে। এতে কৃষকরা হতাশায় পড়েছেন। কৃষকেরা এ জন্য চালকলের মালিক ও সিন্ডিকেট চক্রকে দায়ী করছেন।

কৃষক ও ধান ব্যবসায়ী সূত্রে জানা গেছে, নওগাঁয় এবার বোরো ধান স্মরণকালের মধ্যে সর্বোচ্চ ফলন হয়েছে। এক সপ্তাহ আগে স্থানীয় হাট ও ধানের আড়তে ধান প্রকারভেদে ৮২০ থেকে ৯০০ টাকা বিক্রি হয়েছে। বর্তমানে প্রতি মণ ধান ৬০০ থেকে ৭০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ধানের আড়তদার, চাতাল ব্যবসায়ী, চালকল ব্যবসায়ী ও মাঠপর্যায়ের ধান ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে ধানের দরপতন ঘটাচ্ছেন বলে কৃষকদের অভিযোগ।

নওগাঁ জেলার রানীনগর উপজেলার সবচেয়ে বড় ধানের হাট আবাদপুকুর। ওই এলাকার কৃষক রহিদুল ইসলাম বলেন, এক সপ্তাহ আগে প্রতি মণ ধান ৮২০ টাকা বিক্রি করেছি, কিন্তু এখন ৬০০ টাকা দর।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সরকারিভাবে এখনও সেভাবে ধান কেনা শুরু হয়নি। এ সুযোগে সিন্ডিকেট চক্র ঈদ সামনে রেখে ধানের বাজার নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দাম কমানোর অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। ধানের দরপতনের সুযোগ নিয়ে মজুতদার ও চালকলের মালিকেরা তাদের গুদাম ভরছেন। ওদিকে দাম কমে গেলেও ঈদের খরচ ও ধান কাটার খরচ জোগাতে ধান বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন।

রানীনগর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম বলেন, চলতি বছরে বোরো ধানের ফলন ভাল হয়েছে। কিন্তু ফসল কাটা ও মাড়াইয়ের মাঝামাঝি সময় থেকে বাজারে ধানের দাম কিছুটা কম। ফলে কৃষকেরা ধান বিক্রি করে প্রত্যাশিত অর্থ পাচ্ছেন না।

আরও পড়ুন
Loading...