দেশেই ভ্যাকসিন উৎপাদন করতে কাজ করা হচ্ছে – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

বর্তমান খবর : স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি বলেছেন, সরকারের সময় মতো সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণের জন্যই করোনাভাইরাসের মহামারীর মধ্যেও দেশ অনেকটা নিরাপদ রয়েছে। তবে আগামী কিছুদিন আমাদেরকে আরো বেশি সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি বলেন, প্রতিবেশী দেশ ভারতে দিনে গড়ে প্রায় চার হাজার মানুষ মহামারীতে মারা যাচ্ছে এবং দিনে তিন থেকে চার লাখ লোক আক্রান্ত হচ্ছে। অথচ ভারতের এতো নিকটবর্তী দেশ হয়েও আমাদের দেশে বর্তমানে সংক্রমণ দিনে ৩শ’ জনের কাছাকাছি নেমে এসেছে। মন্ত্রী আরো বলেন, ভারতীয় নতুন ভ্যারিয়েন্ট দেশে চলে এলেও তাদেরকে সঠিকভাবে কন্ট্রাক্ট ট্রেসিং করায় তা দেশে ছড়াতে পারে নি।

জাহিদ মালেক আজ দুপুরে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে ঈদ পরবর্তী এক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন।

জাহিদ মালেক বলেন, ঈদ শেষে মানুষ যেন আগামী কিছু দিন ঢাকায় ফিরতে না পারে সে বিষয়ে সরকারকে সচেষ্ট থাকতে হবে। ভারতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক পর্যায়ে না আসা পর্যন্ত সে দেশটির সঙ্গে সব রকম সীমান্ত বন্ধ রাখতে হবে।

ভ্যাকসিন প্রসঙ্গে জাহিদ মালেক বলেন, রাশিয়া, চীন, যুক্তরাজ্য সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে সরকারের ফলপ্রসূ আলোচনা চলছে। খুব শীঘ্রই হয়তো এ বিষয়ে সুখবর দেওয়া সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, ভ্যাকসিন ক্রয়ের পাশাপাশি দেশেই ভ্যাকসিন উৎপাদন করতে কাজ করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলোকে কেন্দ্রীয় ঔষুধ প্রশাসনের অনুমোদন নিতে হবে। সব ধরনের উৎপাদন ক্ষমতা যাচাই-বাছাই করে কিছু নাম সুপারিশ করলে তখন সেগুলো থেকে নির্দিষ্ট করে উপযুক্ত কোন এক বা একাধিক কোম্পানীকে উৎপাদন ক্ষমতা দেওয়া যেতে পারে।

এ বিষয়ে কোন কোম্পানীকে এখন পর্যন্ত অনুমোদন দেওয়া হয়নি বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে স্বাস্থ্যসেবা সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলী নূর, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও যুগ্ম-সচিবরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
Loading...