Ultimate magazine theme for WordPress.

বেনাপোলে মাদক নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের…

কমলগঞ্জে স্বামীকে অচেতন করে স্ত্রীর পরকিয়ায়…

খাদ্য অভাবে বিনষ্ট হচ্ছে বরমীর বানর প্রজাতি, ভুগছে নানা রোগে

0 ১০৯

বর্তমান খবর, শ্রীপুর-গাজীপুর,নিজস্ব প্রতিনিধি :
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বরমী বাজার একটি প্রাচীন বাজার। এই বাজারের উৎপত্তি কত সালে তা যানা যায়নি। বর্মী বাজার নামটি মূলত বার্মা শব্দটি থেকে এসেছে। এককালে বার্মীজরা এখানে অবস্থান করেছিল বলে জানা যায় ইতিহাস থেকে। শুধু বার্মীজ নয় আরো অনেক দেশের লোক এখানে যাতায়ত করতো তার প্রমাণও মেলে। যেমন পাঠানটেক নামে একটি গ্রাম আছে এইখানে, যা থেকে বোঝা যায় এককালে ভারতীয় পাঠানদেরও এই এলাকায় যাতায়ত ছিল নিয়মিত। বরমী একটি প্রাচীন জনবহুল এলাকা। বরমীর ঐতিহ্য হলো বরমীর বাজার,বানর,বানার নদী,বুধবারের তন্দুর রুটি-জিলাপী,তালকাঠ মহল ইত্যাদি।

ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য প্রসিদ্ধ এলাকা গাজীপুরের শ্রীপুরের বর্মী। কথিত আছে, শীতলক্ষার তীরবর্তী এই বাজারে ব্যবসায়িক কারণে বার্মার ব্যবসায়ীদের নিয়মিত যাতাযাত ছিল। আর তাদের মাধ্যমে প্রায় ২০০ বছর আগে এই বাজারে মানুষের সঙ্গে সঙ্গে আস্তানা গড়ে তোলে বানরের দল। বর্তমা‌নে এই বাজারের একমাত্র ঐ‌তিহ্য হলো বানর,এই বাজা‌রে এখন প্রায় ২০০০ টিরও অধিক বানর র‌য়ে‌ছে।

দীর্ঘদিন ধরেই বর্মী বাজারের দোকানগুলো থেকে বানরের খাবারের সংস্থান হতো। কিন্তু করোনায় লকডাউনে দোকান-পাট বন্ধ থাকায় খাবার সংকটে পড়ছে প্রায় হাজার দুয়েক বানর। খাবারের অভাবে থাকা বানরের কান্না ভেসে আসে বাতাসে।

স্থানীয়রা জানান, বর্মী বাজার এলাকায় বানর দলবেধে চলাচল করে, কখনো নদীর ধারে আবার কখনো দোকানের টিনের চালে ছুটে বেড়ায় এরা। বন্যপ্রাণী হলেও বন না থাকায় এসব বানর বর্মী বাজারের বিভিন্ন মানুষের বাড়ি বা দোকানের বিভিন্ন পরিত্যাক্ত স্থানে বা গাছে আস্তানা গেড়েছে।

বুদ্ধিমান প্রাণী হিসেবে বানরের পরিচিতি রয়েছে বেশ। নিরামিষভোজী হলেও এদের বাসস্থান বা খাবারে বেশ বৈচিত্র রয়েছে। বিভিন্ন দোকান থেকে তাদের চাহিদামতো খাবারের ব্যবস্থা করতে হতো। অন্যথায় তাদের অত্যাচার বেড়ে যেত। নানা দিক বিবেচনায় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা এই বানরের খাবারের যোগান দিয়ে আসছে বছরের পর বছর। তবে এবার করোনার কারণে বাজারের দোকানপাট বন্ধ থাকায় তাদের চাহিদামত খাবারেরও ব্যবস্থা হচ্ছে না।

স্থানীয় বাজারের ব্যবসায়ী জামান মোড়ল জানান, করোনার কারণে বাজারের ব্যবসা প্রায় বন্ধ অবস্থা। তবে দোকান সংলগ্ন নিজের বাসায় বসে খাবারের জন্য বানরের কান্না শুনতে পান প্রতিনিয়ত। অভুক্ত এই প্রাণীদের দেখে তার মায়া হয়, তিনি নিজে দুই দিন ধরে সামান্য কলা-রুটি কিনে বানরদের দিয়েছেন। ইতিপূর্বে এই এলাকায় মানুষ ও বানর একসঙ্গে বসবাস করে আসলেও এখন অসহায় হয়ে পড়ছে বানরগুলো।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এসমস্ত বানরদের বেশির ভাগই বাচ্চা দিয়েছে এবং তারা নিজেরাও বেশ অসুস্থ অবস্থায় দিনযাপন করছে। ঠিকমতো খাবার না খেতে পেয়ে তারা হানা দিচ্ছে বনবাদারে বা মানুষের বসতবাড়িতে। কাপড়চোপড় থেকে শুরু করে ফসলের মাঠ,কাচা সবজি ইত্যাদি খেয়ে জীবনধারণ করছে বানরের।

এলাকাবাসীর দাবি,বানরদের যেন পর্যাপ্ত পরিমানে খাবার দেয়া হয়, যাতে খাবারের অভাবে তাদের বসতবাড়িতে আর হানা না দেয়। বানরের পরিচর্যায় স্থানীয় যুবকদের কিছু সেচ্ছাসেবী সংঘটন কাজ করে যাচ্ছে বহুদিন ধরেই। কিন্তু তারা পর্যাপ্ত পরিমানে খাবারের যোগান দিতে না পারায় সংশ্লিষ্ট মহলকে এবিষয়ে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য গনমাধ্যম কর্মীদের অভিহিত করেন।

এ বিষয়ে বরমী ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন সাংবাদিকদের জানান,বানরের খাবার পর্যাপ্ত পরিমানে না থাকায় এসব বানরের দল লোকালয়ে হানা দিচ্ছে ফলে এলাকাবাসী নানা দিক দিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। খাবারের বিষয়ে যদি সরকারি ভাবে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয় তাহলে হয়তো তাদের সঠিক ভাবে টিকিয়ে রাখা যাবে। পাশাপাশি আমি নিজ উদ্যোগে এসমস্ত বানরের খাবার সরবরাহের কাজ চালিয়ে যাচ্ছি বরাবরের মতোই।

বানরের চিকিৎসা সেবা ও পরিচর্যা নিয়ে প্রানিসম্পদ অধিদপ্তরের আওতায় শ্রীপুর উপজেলা প্রানিসম্পদ অফিসার ডাঃ মোঃ রোকনুজ্জামান (পলাশ)বলেন,বানরের চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে কোন সহযোগিতা লাগলে আমরা অবশ্যই তার ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

বন কর্মকর্তা শ্রীপুর রেঞ্জ বিট অফিসার সজিব মজুমদার এর কাছে বানর সংরক্ষণ, চিকিৎসা ও শতভাগ খাবার নিশ্চিত করন সম্পর্কে জানতে চাইলে, তিনি বলেন, বন্যপ্রাণীর অভয়ারণ্য হল বন। আর তাই বন থেকেই তাদের খাবারের ব্যবস্থা করাটাই একটা স্বাভাবিক বিষয়। তবে আমরা এসমস্ত বন্যপ্রাণীরা যেন বনবাদাড় বা গাছ থেকে ফলমুল খেয়ে জীবন ধারন করতে পারে সে ব্যবস্থা আমরা করবো। পাশাপাশি ফলের গাছ বা অন্যান্য বনায়ন প্রকল্পের কাজও করে যাচ্ছি।

চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে তিনি বলেন বন্যপ্রাণী সংরক্ষণের আওতায় আমাদের একটি বিশেষ টিম রয়েছে। কোন বন্য প্রানি যদি অসুস্থতায় ভোগে তাহলে আমরা খবর পাওয়ার সাথে সাথেই দূত ব্যবস্থা গ্রহন করবো এবং চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করবো।
ভিডিও দেখতে এই লিংকে ক্লিক করুন https://www.youtube.com/watch?v=SfQshClFxTU

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.