কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গৃহবধুকে নিযার্তনের অভিযোগ

বর্তমান খবর,কমলগঞ্জ(মৌলভীবাজার)প্রতিনিধি :
কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় হেলেনা বেগম নামে এক গৃহবধুকে নিযার্তন করা হয়েছে। গত রোববার বিকালে কমলগঞ্জের কেছুলুটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর তিন দিন অতিবাহিত হলেও নির্যাতনকারীকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

জানা যায়, কেছুলুটি গ্রামের গৃহবধু হেলেনা বেগম এর স্বামী ঢাকায় কাজ করেন। এই সুবাদে তাহার ভাসুর মনু মিয়া বিভিন্ন সময়ে তাকে কুপ্রস্তাব দিয়ে উত্যক্ত করা হত। লম্পট ভাসুরের কুপ্রস্তাবে তিনি রাজি না হওয়ায় প্রায় সময় তাকে শারিরীক ও মানসিকভাবে নিযার্তন করা হত। এক পযার্য়ে গত রোববার (১৮ এপ্রিল) বিকালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভাসুর মনু মিয়া ও নিজাম মিয়া গৃহবধুর বসত ঘরে প্রবেশ করে মারপিট করে জখম করেন।

এ সময় গৃহবধুর কাপড়চোপড় টানা হেচড়া করে শ্লীলতাহানি করা হয় বলে গৃহবধু অভিযোগ করেন। তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে নির্যাতনকারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে আহতবস্থায় উদ্ধার করে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

গৃহবধু হেলেনা বেগম বলেন, আমার স্বামী ঢাকায় থাকার সুবাদে আমার ভাসুর ও নিজাম কয়েক মাস ধরে আমাকে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছে। রাতের বেলাও তারা আমাকে উত্যক্ত করতো। তাদের কথায় রাজি না হওয়ায় তারা আমাকে মারধর করে শ্লীলতাহানি ঘটায়।

তবে অভিযোগ অস্বীকৃতি করে ভাসুর মনু মিয়া বলেন, টিউবওয়েলের পানি পড়াকে কেন্দ্র করে আমার স্ত্রীর সাথে ভাইর বউ এর কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এর বাহিরে তিনি সাংবাদিকদের সাথে কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

এ ঘটনায় মনু মিয়াকে প্রধান আসামী করে সোমবার দুপুরে কমলগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন গৃহবধু হেলেনা বেগম। অভিযোগের তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির এসআই শাহ আলম সাংবাদিকদের বলেন, অভিযোগের কপি আমার কাছে পৌছেছে। বিষয়টি তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন
Loading...