আম বাগানে জমে উঠেছে মাদক ব্যবসা, ধরাছোঁয়ার বাইরে গডফাদাররা

বর্তমান খবর,রাজশাহী প্রতিনিধিঃ
রাজশাহী চারঘাট উপজেলার ২নং শলুয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের তাতারপুর কারিগর পাড়ায় জমে উঠেছে মাদক ব্যবসা আনাচে কানাচে হাত বাড়ালেই মরণব্যধি ইয়াবা ও গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদক পাওয়া যায়। অভিযোগ রয়েছে, অসাধু আইনশৃংখলা বাহিনী কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করেই এসব ব্যবসা হচ্ছে। যদিও মাঝে মধ্যেই র‌্যাবের অভিযানে কিছু চনুপুটি মাদক ব্যবসায়ী আটক হয়।

কিন্তু গডফাদাররা রয়ে যায় ধরাছোয়ার বাইরে। ফলে এলাকায় চুরি, ছিনতাই বৃদ্ধি পাচ্ছে। নাম প্রকাশে অনইছুক স্থানীয় এক ব্যক্তি বলেন তাতারপুর, কারিগর পাড়া, জাহেদ মোড়, ও এমাজ কারিগরের আম বাগানে দাপটের সাথে চালিয়ে যাচ্ছে মাদক ব্যবসা,মাঝে মধ্যে দুই একটি চনুপুটি খুচরা মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে মাদক ব্যবসার গডফাদাররা, শুধু তাই নয় তারা এতটাই ক্ষমতাশালী এলাকার বাসিন্দারা তাদের কিছু বলতে পারে না কারণ কিছু অসাধু আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদেরকে সহায়তা করছে ফলে তারা আরো বেপরোয়া হয়ে পড়ছে।

স্থানীয় কোনো ব্যক্তি যদি প্রতিবাদ করতে চায় তখনই মাদকের গডফাদররা প্রাণাশের হুমকি, মাদক দিয়ে ধরিয়ে দেয়ারও হুমকি দেন। এ ছাড়াও এই মাদকের গডফাদার দের সাথে সাদা পোশাকের আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের দেখা যায় এবং মাদকের গডফাদার দেরকে সাথে নিয়ে মাদক বিরোধী অভিযানের নামে সাধারণ মানুষকে হয়রানি করেন বাদ যাননি ভ্যান চালকরাও শলুয়া ইউনিয়নের মালেকা মোড়ের বাসিন্দা ভ্যান চালক জামাল মিয়া বলেন, আমি বানেশ্বর বাজার থেকে যাত্রী নিয়ে আনুমানিক দুপুর ১.৩০ মিনিটে বাড়িতে যাচ্ছি এমন সময় কারিগর পাড়ার জাহেদ মোড় বাজারের সামনে আমাকে সাদা পোশাকের আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পরিচয়ে আমাদেরকে দারা করায় এবং আমাদের কাছে টাকা দাবি করেন আমার বিষয় টি নিয়ে চিল্লাচিল্লি করলে তারা তাদের ব্যবহৃত মোটরসাইকেল নিয়ে স্থান ত্যাগ করেন।

চারঘাট মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমি এই থানায় আসার পূর্বে তাতারপুর কারিগর পাড়া মাদক ব্যবসায়ীদের আনাগোনা থাকলেও এখন তা আর দেখা যায় না কারণ, সার্বক্ষনিক চারঘাট মডেল থানার পুলিশ টহলে থাকে কারিগর পাড়ায় এমাজ কারিগরের আম বাগানে মাদক ব্যবসাদের আনাগোর বিষয় টি আমারা আমলে নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো চারঘাট উপজেলার প্রতিটা গ্রাম-পাড়া হল্লার যেখানে মাদক ব্যবসা এবং মাদক কার্বারীদের তথ্য পাওয়া যাবে সেখানে অভিযান পরিচালনা করে তাদের আটক করা হবে এবং তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

চারঘাট মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম আরো বলেন, চারঘাট উপজেলাকে মাদক সন্ত্রাস মুক্ত করতে সদাসর্বদা প্রস্তুত আছে চারঘাট মডেল থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন
Loading...